চীনের ‘দ্য ন্যাশনাল কলেজ এন্ট্রান্স এক্সাম’ বিশ্বের সবথেকে কঠিন পরীক্ষা বলে পরিচিত। প্রতি বছর প্রায় ১ কোটি শিক্ষার্থী এই পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে। আর এই পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে অনেক শিক্ষার্থীই নকলের আশ্রয় নিয়ে থাকে। তাই এবার থেকে এই পরীক্ষায় নকল ঠেকাতে ড্রোন ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে চীনের হেনান প্রদেশ কর্তৃপক্ষ।
নকল করার ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীরা বেশ অভিনব পন্থা অবলম্বন করে যেমন কেউ কেউ ক্যামেরাযুক্ত চশমা লাগিয়ে করে। আর এই ক্যামেরা প্রশ্নপত্রের ছবি তুলে বাইরে অপেক্ষমাণ সংশ্লিষ্ট কারো কাছে পাঠিয়ে দেয়। আর পরবর্তীতে বাইরে থেকে উত্তর পেতে কানে থাকে এয়ারপিস। এছাড়া নকলের জন্য কেউ কেউ স্মার্ট কলমও ব্যবহার করেন। এই ধরনের কলমের মাধ্যমে বাইরে অপেক্ষমাণ কারো কাছে প্রশ্ন পাঠিয়ে দেওয়া সম্ভব হয়।
পরীক্ষার কেন্দ্রে নকলের এসব ধরণের অভিনব পন্থা ঠেকাতে বেশ হিমশিম খাচ্ছে কর্তৃপক্ষ। তাই নকল ঠেকাতে মনুষ্যবিহীন ড্রোন ব্যবহারের এমন সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। মূলত পরীক্ষার কেন্দ্রে অংশগ্রহণকারীদের মাথার উপর দিয়ে অনবরত চক্কর দিবে এই ড্রোন। ড্রোনগুলো মূলত কেন্দ্রগুলোতে কোনো রেডিও তরঙ্গ থাকলে তা শনাক্ত করবে এবং এই তরঙ্গের উৎপত্তিস্থল সম্পর্কে সংকেত দিবে।

381 Total Views 1 Views Today
0